চট্টগ্রামে সাপ পিটানোর মতো করে যুবলীগ কর্মীকে পেটানোর ভিডিও ভাইরাল

0
820

বরগুনায়  রিফাত শরীফকে কুপিয়ে হত্যার রেশ কাটতে না কাটতে এবার মো. মহসিন (২৬) নামের এক যুবলীগ কর্মীকে প্রকাশ্যে নির্মমভাবে নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে। ইতোমধ্যে সেই ঘটনার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে।

গ্রামের ঝোপঝাঁড় থেকে ভুল করে কোনো সাপ লোকালয়ে চলে আসলে যেভাবে অনেক মানুষ লাঠি দিয়ে পেটায়, ঠিক তেমনিভাবে  যুবলীগ কর্মী মহসীন কে মারধর করে গুরুতর জখম করেছে প্রতিপক্ষের লোকজন।

মহসিন কে পেটানোর সেই ভিডিও ভিডিও ফুটেজ সংগ্রহ করে পুলিশ। সেই ফুটেজ দেখে হামলাকারী একজন এবং সন্দেহভাজন চারজনসহ মোট পাঁচজনকে আটক করেছে পুলিশ।ঘটনায় আটক ব্যক্তিরা হলেন- মুহাম্মদ সাজু (২৪), মো. মাসুদ (১৮), মুহাম্মদ মিরাজ (১৭), বেলাল উদ্দীন (২০) ও মোহাম্মদ তারেক (১৮)। হামলায় জড়িতরা উত্তর পাহাড়তলী ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ও স্থানীয় কাউন্সিলর জহুরুল আলম জসিমের অনুসারী বলে জানা গেছে।

ভাইরাল হওয়া এক মিনিট ৩৩ সেকেন্ডের ওই ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, লাঠিসোটা নিয়ে এগিয়ে আসা হামলাকারীদের দেখে পালানোর চেষ্টা করেন মহসিন। তিনি দৌঁড়ে যাওয়ার সময় একটি দেওয়ালের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে পড়ে যান। এ সময় হামলাকারীদের একজন তার এক পা ধরে রাখেন। মাটিতে শোয়া মহসিনকে তখন অন্যরা লাঠি দিয়ে বেধড়ক পেটাতে থাকেন। যেন লোকালয়ে ঢুকে পড়া কোনো সাপকে পেটাচ্ছে! মাত্র দেড় মিনিটের মধ্যে মহসিনকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে হামলাকারীরা মাথা উঁচু করে চলে যান। এই হামলায় অংশ নেন ১২ থেকে ১৫ জনের একটি দল।

পুলিশ জানায়, মারধরের সময় এদের মধ্যে একজন মহসিনের পা ধরে রাখে। ওই যুবকের নাম চৌধুরী জুয়েল। জুয়েলের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। এ ছাড়া ভিডিও ফুটেজ দেখে মো. তুহিন, মোহাম্মদ রাব্বী, মো. পারভেজ, ফারহান উদ্দীন ও মো. খোকন নামে আরও কয়েকজনকে শনাক্ত করেছে পুলিশ।

 

পদ না থাকলেও মহসিন নিজেকে যুবলীগ কর্মী হিসেবে পরিচয় দেন। তিনি নগরীর উত্তর পাহাড়তলী ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক সরওয়ার মোর্শেদ কচির অনুসারী বলে জানান স্থানীয়রা।

সরওয়ার মোর্শেদ কচি বলেন, ‘কাউন্সিলর জহুরুল আলম জসিমের নির্দেশে হামলার ঘটনা ঘটিয়েছে তার অনুসারীরা। মধ্যযুগীয় কায়দায় মারধর করা হয়েছে মহসিনকে।’

অভিযোগ অস্বীকার করে কাউন্সিলর জহুরুল আলম জসিম বলেন, ‘মহসিনের গ্রুপের লোকেরাই তাকে মারধর করেছে। এ ঘটনার সাথে আমার কোনো কর্মী জড়িত নয়।’

 

Ad

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here