১৫ বছর বয়স হওয়ার আগেই যে ১৫টি চলচ্চিত্র দেখা ফেলা উচিত

অন্যান্য

৯ বছর বয়সী হগার্থ থাকে মায়ের সঙ্গে। হগার্থের অনেক দিনের ইচ্ছা একটি প্রাণী পুষবে। কিন্তু মায়ের ভয়ে তা আর হয়ে ওঠে না। মায়ের একটাই কথা, ঘরের মধ্যে এত জিনিসপত্র আছে যে ১০০ ফুটের কোনো রোবটও তা উঠে পেরোতে পারবে না। রোবট নিয়ে মায়ের এই টিপ্পনী কাটা যে বাস্তবেও রূপ নিতে পারে, সেটা স্বপ্নেও ভাবেনি হগার্থ।

হগার্থ একদিন খেয়াল করল, টিভির অ্যানটেনা পাওয়া যাচ্ছে না। এদিক–সেদিক খুঁজতে খুঁজতে অনেকটা পথ চলে গেল সে। হাঁটতে হাঁটতে পাওয়ার প্ল্যান্টের কাছে এসে দেখা পেয়ে গেল বিশাল এক আয়রন জায়ান্টের। হগার্থের উপস্থিতির কারণেই বিদ্যুতায়িত হওয়া থেকে বেঁচে যায় রোবটটি। এরপরেই বন্ধুত্ব। বেচারা জায়ান্ট টিভি অ্যানটেনার মতো ইলেকট্রনিকসের জিনিসপত্র খেয়ে বেঁচে থাকে। এই বিশাল রোবট নিজের মা ও সরকারি বাহিনীর চোখের আড়ালে লুকিয়ে রাখতে হবে হগার্থকে। তার সঙ্গে তো খাওয়াদাওয়ার জিনিসপত্র জোগাড় করতেই হবে। টেড হিউসের ১৯৬৮ সালের উপন্যাস দ্য আয়রন ম্যান অবলম্বনে নির্মিত মুভি দ্য আয়রন জায়ান্ট মুক্তি পায় ১৯৯৯ সালে।

ব্রিটেনের ফিল্ম, টেলিভিশন সংস্থা বিএফআই (ব্রিটিশ ফিল্ম ইনস্টিটিউট)। ১৯৩৩ সালে প্রতিষ্ঠিত সংস্থাটি ২০০৫ সালে শিশুদের জন্য নির্বাচিত কিছু চলচ্চিত্র নিয়ে কাজ করেছিল। বাছাই করেছিল শিশুদের উপযোগী বেশ কিছু কিছু মুভি। ৭০ জনের বেশি চলচ্চিত্র নির্মাতা, বিশেষজ্ঞ ও সমালোচক মিলে সেই তালিকা তৈরি করেন।

সম্প্রতি বিএফআই এডুকেশন আরও ১৫টি মুভি যুক্ত করেছে সেই তালিকায়। নতুন সব আইডিয়া, শিক্ষণীয়, মজার মুভি দিয়ে তালিকাটি পুনরায় তৈরি করা হয়েছে। ১৫ বছর হওয়ার আগেই যেকোনো কিশোর-কিশোরীর এই মুভিগুলো দেখে ফেলা উচিত। যেহেতু কোয়ারেন্টিন, বই পড়ার পাশাপাশি দেখে নিতে পারো মজার এই মুভিগুলো।